দুশ্চিন্তামুক্ত থাকার ১২টি উপায়

508
নতুন নতুন চাকরির পোষ্ট পেতে আমাদের পেজ লাইক ও শেয়ার করে রাখুন

মানুষ চিন্তার স্রোতে গা ভাসিয়ে দিয়েই যেন মানুষ। তবে প্রত্যেক মানুষ যেমন এক নয়, তেমনি প্রত্যেক মানুষের চিন্তাজগতও এক নয়। ভালো কিছু ভেবে চিন্তে করা এক ব্যাপার কিন্তু সবসময়ই ভালো ভাবনা মস্তিষ্কে স্থাপন করা সম্ভবপর হয় না। যার দরুন অনেক ভালো কিছুর সম্ভাবনা থেকেও অনেকেই হেলে যায় খারাপের দিকে, সেই খারাপ থেকে কি করে ভালো চিন্তায় নিজেকে মনোনিবেশ করা যায় সে সম্পর্কেই আজ জানবো ১৩ টি টিপস-

১. যোগব্যায়াম

অনেকেই দুশ্চিন্তা থেকে নিজেকে মুক্ত রাখতে ধূমপানের মতো বাজে কিছু অভ্যাসে জড়িয়ে পড়েন। এটা আপনার পুরোপুরি ভুল একটি কাজ! এর ফলে সাময়িক প্রশান্তি হয়তো পাওয়া সম্ভব, তবে ক্ষতির পাল্লাই ভারি। যদি প্রত্যহ রুটিন করে যোগব্যায়ামের অভ্যাস করেন তাহলে আপনি অবশ্যই দুশ্চিন্তা থেকে নিজেকে দূরে রাখতে পারবেন।

২. ফোকাসিং

একটি বৃত্ত আঁকতে গিয়ে যখন আপনি কেন্দ্রেই ঝামেলা বাঁধান, তখন তা আর পরিপূর্ণ বৃত্ত হয়ে উঠতে পারে না। আপনাকে কেন্দ্রে ফোকাস করতে হবে। কেন্দ্রবিন্দু ঠিক করে কম্পাস ঘুরালে বৃত্ত হতে বাধ্য। তদ্রুপ নিজের জীবনকে সঠিক রূপ দিতে ভালো কাজের তথা ভালো চিন্তায় নিজেকে মনোনিবেশ করুন। অর্থাৎ ফোকাস করতে হবে সঠিক ভাবনার উপর।

৩. ঘুম এবং বিশ্রাম

ঘুম এমন একটি ব্যাপার যা একজন পাগলকেও ভালো করে দেবার নিশ্চয়তা দিতে পারে! প্রতিদিন রুটিন করে সময়মত বিশ্রাম নিন। একই সময়ে গোসল, খাবার, ঘুম ঠিক রাখুন। এতে শারীরিক কার্যক্রম একটি নিয়মের অধীন হবে। যাতে আপনি দুশ্চিন্তা থেকে বহুলাংশে মুক্তি পাবেন।

৪. পজিটিভ ভাবনা

ধরুন আজ ঘুম থেকে উঠে দেখলেন আকাশে প্রচন্ড মেঘের ঘনঘটা। বৃষ্টি নামবে। এই অবস্থায় অনেকেই ভাববেন- ধুর! আজ দিনটাই খারাপ যাবে! কিন্তু কেন আপনি এমনটা ভাবছেন? আপনি তো এমনটাও ভাবতে পারেন যে, আজ বৃষ্টিতে ভিজবো, ভিজে আনন্দ করবো। প্রিয় মানুষদের সাথে নিয়ে ভিজবো। পজিটিভলি নেয়ার মানসিকতা তৈরি করতে হবে।

৫. খেলাধুলা এবং হাঁটা

কম করে হলেও প্রতিদিন অন্তত ১ ঘন্টা খেলাধুলা কিংবা হাঁটার চেষ্টা করুন। এতে শরীর সুস্থ থাকবে এবং দুশ্চিন্তা অনেকাংশে লাঘব হবে।

৬. অবসরে

প্রিয়জনকে সময় দিন। রৌদ্রজ্জ্বল কোনো দিনে ঘুরে আসুন। শেয়ার করুন নিজের ভাবনা প্রিয়জনের সাথে।

৭. গান শুনুন

মিউজিক এমন একটি উপাদান যা আপনাকে তেতুলিয়া থেকে টেকনাফ পর্যন্ত নিয়ে যেতে সক্ষম। যখনই দুশ্চিন্তা মাথায় আসবে তখনি আপনি আশ্রয় নিতে পারেন সঙ্গীতের। তবে অবশ্যই অবসাদকে হত্যা করতে বিরহের গান থেকে নিজেকে দূরে রাখুন। আমেজ জুটাবে, হাসির খোরাক জোটায় কিংবা ভালো ভাবনা মাথায় আসবে এমন গানই প্লে লিস্টে বেশি করে রাখুন।

৮. বই পড়ুন

বলা হয়ে থাকে, বই এমন এক বস্তু যা নিস্বার্থভাবে একজন মানুষকে আনন্দ দিতে পারে। তাই বই পড়ার অভ্যাস করুন। এতে কিছুটা হলেও চিন্তা লাঘব হবে।

৯. মোবাইল গেমস

চিন্তা থেকে নিজেকে মুক্ত রাখতে মোবাইল গেমসে এ হাত নাড়াচাড়া করলে মন্দ হয় না।

১০. সহজ করে ভাবুন

ধরুন কেউ আপনাকে প্রশ্ন করলো ১+১ সমান কত? আপনি হয়তো প্রথম শুনেই হাসবেন কিংবা ভাববেন এটা সোজা কিছু না। নিশ্চয়ই কঠিন কোনো গণিত হবে। কিন্তু আপনি সহজ করে ভাবতেই পারছেন না, ১+১=২ ই হবে! সহজ করে ভাবলে অনেক কঠিন ব্যাপারও নিজের আয়ত্তে আসে নিমিষেই। শুরুর দিকটাতে সহজ করে ভাবার চেষ্টা করুন।

১১. মানুষের সাথে মিশুন

জীবন অনেক বড়। নিজেকে ঘরকুণো করে রাখবেন না। যত মানুষের সাথে মিশবেন আপনার মন তত বড় হবে। মনের সংকীর্ণতাও দূর হবে ।
আপনি মানুষকে আরো কাছ থেকে চিনতে পারবেন ।

আড্ডাবাজি; ছবিসূত্রঃ প্রথম আলো

একবার ভেবে দেখুন আপনি নিজেকে কেন গুটিয়ে রাখবেন? আসলেই কি কোনো কারণ আছে? মানুষের সাথে মিশলে আপনার অভিজ্ঞতা ঝুলি ভারী হবে এবং আপনার যেকোনো পরিস্থিতি সামাল দেয়ার মতো সক্ষমতা তৈরী হবে ।

১২. প্রাকৃতিক সৌন্দর্য দেখতে ভ্রমণে বের হন

প্রকৃতির অপরুপদৃশ্য; ছবিসূত্রঃnature.org,

সময় করে বেড়িয়ে পড়ুন আপনার জানা মতো ভালো কোনো জায়গায়। উপভোগ করুন প্রকৃতির বিশুদ্ধতা। নিজেকে নতুন করে খুঁজে পেতে এর কোনো বিকল্প নেই। খেয়াল রাখবেন যে, আপনি ভ্রমণে বেরিয়েছেন শান্তির জন্যে তাই সমস্ত দুশ্চিন্তা মাথা থেকে দূরে রাখবেন যতটা সম্ভব ।

হাসুন; ছবিসূত্রঃ ntv.bd

১৩. হাসির অনুশীলন করুন

হাসতে হবে, অযথাই মন খারাপ করে থাকার মাঝে কোনো সমাধান নেই। আপনার কোনো ব্যাপারে হাসি পাবার সম্ভাবনা বেশি তা খুঁজতে চেষ্টা করুন। বলা হয়ে থাকে একজন ব্যক্তি যদি তার হাসার জন্য সঠিক কোনো কারণ খুঁজে বের করতে পারেন তবে তার সফলতার হার বহুলাংশে বৃদ্ধি পায় এবং তিনি দুশ্চিন্তা থেকে নিজেকে মুক্ত রাখতে পারে। তাই বাঁচতে হলে হাসতে হবে এই কথাটি মনে গেঁথে নিন ।

মনে রাখবেন মন খারাপ করে বসে থাকায় কোনো কাজ হবে না। আপনাকে অনেক বেশি ভালো ভাবনাই ভাবতে হবে। লক্ষ্য স্থির করে ছুটতে হবে। তবেই সম্ভব ভালো করে বেঁচে থাকা। মনে আনন্দ নিয়ে মরতে পারায়ও শান্তি আছে। তবে হ্যাঁ, কথা একটাই দুশ্চিন্তাকে তবে আজ থেকেই ‘না’ বলুন। আর কেবলমাত্র দুশ্চিন্তা থেকে দূরে থাকতে পারলেই সফলতা দরজায় কড়াঘাত করবে খুব তাড়াতাড়ি, এমনটা নিশ্চই আপনিও চান! সুস্থ থাকুন,ভালো থাকুন, দুশ্চিন্তা মুক্ত হয়ে বাঁচুন।